লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প (Lakshmi Bhandar Scheme 2022)

পশ্চিমবঙ্গে আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া পরিবারদের সহায়তা করার উদ্দেশ্যে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি নতুন প্রকল্প চালু করেছেন যার নাম লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প। এই প্রকল্পের মাধ্যমে পরিবারের প্রধান মহিলা কে প্রত্যেক মাসে কিছু পরিমান আর্থিক সহযোগিতা করা হবে। কারা এই লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে, বয়সসীমা কত লাগবে এবং সেই সঙ্গে লক্ষী ভান্ডার সম্বন্ধিত যাবতীয় তথ্য নিয়ে থাকছে আজকের বিশেষ প্রতিবেদন। আমি আশা করি আপনি যদি প্রতিবেদনটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়েন তাহলে লক্ষী ভান্ডার নিয়ে কোন প্রশ্ন আপনার মনে জাগবে না।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প (Lakshmi Bhandar Scheme 2022)

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মাননীয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 2021 সালের 1st জুলাই এই লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের সূচনা করেন। এ প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া মহিলাদের আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করা।

  • এই প্রকল্পের অন্তর্গত সাধারণ শ্রেণীর মহিলাকে প্রত্যেক মাসে 500 টাকা করে দেওয়া হচ্ছে।
  • তপশিলি জাতি ও উপজাতির অর্থাৎ SC/ST শ্রেণীর মহিলাকে প্রত্যেক মাসে 1000 টাকা করে দেওয়া হচ্ছে।
  • এই প্রকল্পের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের প্রায় 1.6 কোটি মানুষ উপকৃত হচ্ছে।
  • ওই প্রকল্পের জন্য রাজ্য সরকার 11 হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে।
  • এর মাধ্যমে একটি পরিবারের মাসিক ব্যয়ের 10 থেকে 20 শতাংশ পূরণ করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।
প্রকল্পের নামলক্ষীর ভান্ডার
রূপায়ণেপশ্চিমবঙ্গ সরকার
প্রকল্পের সূচনা1st July 2021
উপভোক্তামহিলা
সাধারণ শ্রেণী500 টাকা প্রতি মাসে
SC/ST শ্রেণী1000 টাকা প্রতি মাসে
আবেদন পদ্ধতিদুয়ারে সরকার ক্যাম্প
Lakshmi Bhandar Scheme 2022

কারা লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে( Who can apply on Lakshmi Bhandar Scheme)

  1. এই প্রকল্পে আবেদনকারী মহিলার বয়স কমপক্ষে 25 থেকে 60 বছরের মধ্যে হতে হবে।
  2. আবেদনকারীকে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।
  3. আবেদনকারীর নিজস্ব ব্যাংক একাউন্ট এবং আধার কার্ড থাকতে হবে।
  4. সুবিধাভোগীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে আধার কার্ড লিঙ্ক করা থাকতে হবে।
  5. পার্টটাইম কোথাও কাজ করে থাকলেও আবেদন করতে পারবেন।

কারা লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে না ( Who can’t apply on Lakshmi Bhandar Scheme)

  1. যে মহিলারা সরকারি দপ্তরে স্থায়ী পদে চাকরি করছেন তারা এই প্রকল্পে আবেদন করতে পারবে না।
  2. যদি পরিবারে একজন ট্যাক্স প্রদান কারী সদস্য থাকেন তাহলে ওই পরিবারের কোন মহিলা এই প্রকল্প আবেদন করতে পারবেন না।
  3. যদি 2 হেক্টরের বেশি জমি থাকে তাহলে এই প্রকল্পে আবেদন করা যাবে না।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে (Required Documents For Apply Lakshmi Bhandar Scheme)

  • আবেদনকারী মহিলার স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের জেরক্স
  • খাদ্য সুরক্ষা কার্ডের জেরক্স
  • আধার কার্ডের জেরক্স
  • কাস্ট সার্টিফিকেট থাকলে তার জেরক্স
  • ভোটের কার্ডের জেরক্স
  • পাসপোর্ট সাইজের ফটো 2 কপি
  • ব্যাংক একাউন্টের জেরক্স
  • আবেদনকারীর বৈধ মোবাইল নাম্বার

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প ফরম ডাউনলোড (Lakshmi Bhandar Scheme Application Form)

 

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করার জন্য আবেদন পত্র দুইভাবে সংগ্রহ করতে পারেন

  • প্রথমতঃ সরাসরি দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকে
  • দ্বিতীয়তঃ নিচে দেওয়া ডাউনলোড অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম অপশনে ক্লিক করে

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পে কিভাবে আবেদন করবো (How to apply on Lakshmi Bhandar Scheme)

প্রথমেই জানিয়ে রাখি লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করতে হলে আপনাকে সম্পূর্ণ অফলাইন পদ্ধতিতে করতে হবে। এখনো পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়ার কোনরূপ পদ্ধতি সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে প্রকাশ করা হয়নি। আবেদন করতে পারবেন শুধুমাত্র আপনার ব্লকে সংঘটিত দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে গিয়ে। আবেদনপত্র সংগ্রহ করার পর পাসপোর্ট সাইজের ফটো লাগাতে হবে, তারপর নিজের নাম, বাবার নাম বা স্বামীর নাম, স্বাস্থ্যসাথী আইডি কার্ডের নাম্বার, আধার নাম্বার মোবাইল নাম্বার, যাবতীয় তথ্য দিয়ে আবেদনপত্রটি সম্পূর্ণ করতে হবে। আবেদনপত্র সঠিকভাবে পুরণ হয়ে গেলে তারপর দুয়ারের সরকারের ক্যাম্পের যেখানে আবেদনপত্র জমা নেওয়া হচ্ছে ওইখানে গিয়ে আবেদন পত্রটি জমা করতে হবে।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের বাজেট ( Budget For Lakshmi Bhandar Scheme)

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গত 2021 সালের ফার্স্ট জুলাই এই প্রকল্পের আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেন। একই সঙ্গে এই প্রকল্পের জন্য একটি বাজেট ঘোষণা করা হয়। এই প্রকল্পের জন্য রাজ্য সরকার মোট 12900 কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের দরিদ্র পরিবারের আর্থিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য এই প্রকল্পের সূচনা করা হয়। এখনো পর্যন্ত রাজ্য সরকারের ডাটাবেস অনুযায়ী প্রায় 33 লক্ষেরও অধিক নারী এই প্রকল্পের আওতায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন। প্রায় 1.6 কোটি মানুষ এ প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হবেন বলেও জানানো হয়েছে। এই প্রকল্পের ফলে সমাজে তপশিলি জাতি ও উপজাতি সম্প্রদায়ের অর্থনৈতিক উন্নতি অনেকটা স্বচ্ছল হবে বলে মনে করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে গ্রাম্য ও শহরের অর্থনীতির  অনেকটা বিকাশ সাধিত হবে।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের মেসেজ(Lakshmi Bhandar Scheme Massage)

 দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে আবেদনপত্র সঠিকভাবে জমা দেওয়ার কয়েকদিনের পরপরই আপনার মোবাইলে সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে একটি মেসেজ পাঠানো হবে। এই মেসেজের মাধ্যমে আপনি অবগত হবেন যে আপনার আবেদন প্রক্রিয়া টি সঠিকভাবে সম্পন্ন হয়েছে কিনা।

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের নামের লিস্ট (Name List of Lakshmi Bhandar Scheme)

সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে কোনপ্রকার নামের লিস্ট প্রকাশ করা হয়নি। আপনি যদি লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের নিয়মাবলী গুলি সঠিকভাবে মেনে চলে আবেদন করেছেন তাহলে আপনি এই প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবেন। আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে প্রত্যেক মাসে আপনার প্রাপ্য টাকা আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সরাসরি ট্রানস্ফার করে দেওয়া হবে।

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প স্ট্যাটাস চেক (Lakshmi Bhandar Scheme Status Check)

 লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পে স্ট্যাটাস চেক করার জন্য নিচে দেওয়া স্টেপ গুলি ধাপে ধাপে ফলো করুন

  1. প্রথমে আপনার মোবাইলে “Chrome” অ্যাপ্লিকেশন এ গিয়ে সার্চ করুন https://socialsecurity.wb.gov.in
  2. লিংকে ক্লিক করার পর হোমপেজ প্রদর্শিত হবে। হোমপেজে “Log in” অপশনে ক্লিক করুন।
  3. তারপর আপনার মোবাইল নাম্বার ইনপুট করুন যেটি আবেদন করার সময় দিয়েছিলেন।
  4. এরপর “OTP Generate” অপশনে ক্লিক করুন
  5. এরপর মোবাইলে পাওয়া ওটিপি দিয়ে লগইন করুন
  6. লগইন হওয়ার পর চেক অ্যাপ্লিকেশন স্ট্যাটাস এ ক্লিক করুন
  7. এরপর আপনার রেফারেন্স নাম্বার দিয়ে আপনার লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প স্ট্যাটাস টা চেক করে নিতে পারবেন।

লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের সঙ্গে স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের সম্পর্ক (Relation Between Swasthya Swathi Card & Lakshmi Bhandar Scheme)

 

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের সঙ্গে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর অনেক সম্পর্ক রয়েছে। লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করতে হলে আপনার স্বাস্থ্য সাথী কার্ড অবশ্যই প্রয়োজন। স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না থাকলে আপনি এই প্রকল্পে কোন ভাবেই আবেদন করতে পারবেন না সেই সঙ্গে কোন প্রকার সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না। তাই আপনার যদি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না থাকে তাহলে প্রথমে আপনি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর জন্য আবেদন করবেন এবং পরবর্তীতে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর নাম্বার নিয়ে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবেন।

লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প apply Online (Lakshmi Bhandar Scheme Apply Online)

লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করার জন্য অনলাইনে এখনো পর্যন্ত কোন প্রকার পদ্ধতি চালু করা হয়নি। রাজ্য সরকার আবেদন পদ্ধতি সম্পূর্ণ অফলাইন সিস্টেমে বহাল রেখেছে। আবেদন করার শুধুমাত্র একটি পদ্ধতি রয়েছে সেটি হল দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে গিয়ে আবেদন করা। যদি পরবর্তীতে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প অনলাইনে আবেদন করার কোনো বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয় তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটের সবার প্রথমে এটি তুলে ধরা হবে।

FAQ

প্রশ্নঃ অনলাইনে কি লক্ষী ভান্ডার প্রকল্পে আবেদন করা যায়?

উত্তরঃ অফিসিয়াল ভাবে কোন আপডেট দেওয়া হয়নি। বর্তমানে সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া দুয়ারে সরকার ক্যাম্পের দ্বারা অফলাইন মাধ্যমে চলছে।

প্রশ্নঃ লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প নামের লিস্ট কবে বেরোবে?

উত্তরঃ সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে কোনপ্রকার নামের লিস্ট বের করা হবে না, আবেদনপত্র সঠিকভাবে করলে প্রত্যেকেই এই প্রক্রিয়ার সুবিধা গ্রহণ করতে পারবে।

প্রশ্নঃ স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না থাকলে কী লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের আবেদন করা যাবে না?

উত্তরঃ স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না থাকলে লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প আবেদন করা কোনভাবেই সম্ভব নয়। আপনার যদি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড না থাকে তাহলে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প অথবা আপনার পঞ্চায়েত অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড ইস্যু করার পর তবে আবেদন করুন।

1 thought on “লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প (Lakshmi Bhandar Scheme 2022)”

Leave a Comment