How to Choose Right Career In Bengali | কিভাবে সঠিক ক্যারিয়ার বাছাই করবেন

How to Choose Right Career In Bengali

আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন প্রত্যেকে এই কথাটি শুনেছি যে তুমি বড় হয়ে কি হতে চাও? এ প্রশ্নটি কখনো বাবা-মার কাছ থেকে, কখনো প্রতিবেশীর কাছ থেকে, কখনোও বা স্কুল শিক্ষকদের কাছ থেকেও শোনা যেত। সেই সময় আমরা অনেকে বলতাম যে বড় হয়ে আমি একজন ভালো Doctor হয়ে গরীব মানুষদের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসা করব আবার কেউ কেউ বলতো যে আমি Army তে যোগ দিয়ে দেশের সেবা করব।

কিন্তু যখনই আমরা মাধ্যমিক পাশ করি তারপরেই আমাদের Career বেছে নেওয়া নিয়ে একটা সিরিয়াস চিন্তাভাবনা জেগে ওঠে। আজকের এই প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করব কিভাবে আপনি আপনার জীবনে চলার পথে সঠিক Career বেছে নিবেন এবং সেইসঙ্গে কিভাবে আপনি আপনার ক্যারিয়ারের সফল হতে পারবেন। তাই আজকের প্রতিবেদেনে আমরা বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করব How To Choose Right Career in Bengali। প্রতিবেদনটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ার বিশেষ অনুরোধ রইল।

প্রথমেই সিদ্ধান্ত নিন আপনি কি করতে ভালোবাসেন এবং কোন বিষয়ে আপনার বিশেষ দক্ষতা রয়েছে

প্রত্যেক শিক্ষার্থীরই কোন না কোন বিষয়ে ভালো রেজাল্ট করে এবং ওই বিষয়টি তার খুবই প্রিয় হয়ে থাকে। কেউ যদি তার প্রিয় বিষয়টিকে নিয়ে ক্যারিয়ার তৈরি করতে চায় তাহলে একটি বিশেষ সুবিধা হলো এই যে তার ক্যারিয়ারের ক্ষেত্রে কাজ করতে অনেকটা সুবিধা হবে এবং কাজে অনেকটা উৎসাহ যোগাবে।

যেমন ধরুন কেউ যদি Commerce নিয়ে পড়াশোনা করছে তার যদি পছন্দের বিষয় হয় Accountant তাহলে আপনি পরবর্তিতে আপনার ক্যারিয়ারের ক্ষেত্রে একজন ভালো Accounted হতে পারেন। আবার আপনি যদি Photography করতে ভালোবাসেন তাহলে ওই Photography -ই আপনার ক্যারিয়ার হয়ে উঠতে পারে।

একটি ভুল পদক্ষেপ আপনার ক্যারিয়ার তছনছ করে দিতে পারে

এমন কোন ভুল পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন না যাতে করে আপনার ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ারে বিঘ্ন ঘটতে পারে। আমাদের চারপাশে অনেক উদাহরণ রয়েছে যা আমাদেরকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়। অনেকেই পরিবারের চাপে এবং কাউকে Impress করার জন্য তার ক্যারিয়ারে কঠিন Subject বেছে নেয়, কিন্তু সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে উপলব্ধি করে যে এই বিষয়টি নেওয়া তার একেবারেই উচিত হয়নি। পরবর্তীতে সংশ্লিষ্ট বিষয়ের প্রতি মনোযোগ কমে যাওয়া, Depression, Frastration সবকিছু একসঙ্গে ঘন হয়ে ওঠে একটি ভুল পদক্ষেপের জন্য।

তাই যে বিষয়টি ভালো লাগে এবং যে বিষয়ে আপনি যথেষ্ট আশাবাদী সেই বিষয় নিয়ে ক্যারিয়ার তৈরি করার কথা ভাববেন। না হলে পরে গিয়ে চরম বিপর্যয়ের মুখে পড়তে হবে।

আপনার প্রত্যাশা জানার চেষ্টা করুন

আপনি যদি ভাবেন আমি সমাজের সেবা করতে চাই তাহলে আপনি একজন ভালো ডাক্তার হয়ে অথবা একজন ভালো সৈনিক হয়ে আপনি অর্থ উপার্জনের সঙ্গে সঙ্গে সেবামূলক কাজেও লিপ্ত থাকতে পারেন। কিন্তু আপনার যদি ইচ্ছা থাকে যে আমি খুব ধনী হতে চাই তাহলে আপনাকে এমন একটি Career বেছে নিতে হবে যেখানে আপনি অনেক ধনী হতে পারবেন, যেমন বিজ্ঞান,প্রযুক্তি, অর্থনীতি ইত্যাদি।

সেইসঙ্গে আপনি যদি নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে ক্যারিয়ার তৈরি করতে চান এবং নিজেই নিজের মালিক হতে চান তাহলে আপনি Business করতে পারেন। আপনি আপনার পরিবারের কোনো ব্যবসা কে নিজের হাতে নিতে পারেন এবং সেটাকে বাড়াতে পারেন। অনলাইনে বিভিন্ন প্লাটফর্মে নিজের ব্যবসা করতে পারেন যেমন Web Developer, App Developer, Blogging ইত্যাদি এছাড়াও Digital marketing এর মাধ্যমে আপনি আপনার ক্যারিয়ার তৈরি করতে পারেন।

এমন ক্যারিয়ার বাছুন যেখানে চাহিদা অত্যাধিক রয়েছে

এমন অনেক ক্যারিয়ারের উদাহরণ রয়েছে যেখানে খুব কম লোকই সফলতা অর্জন করতে পারে। এই ধরনের ক্যারিয়ার গুলি এড়িয়ে চলুন সেখানে খুব বেশি ঝুঁকি রয়েছে যেমন Film Producer, Music Director, Fashion Designer ইত্যাদি।

এই একবিংশ শতাব্দীর যুগে প্রযুক্তিবিদ্যা অর্থাৎ Technology অনেকটা আমাদের আনুষঙ্গিক অঙ্গ হয়ে পড়েছে। বর্তমানে আমরা এই টেকনোলজির ছাড়া একটা দিনও কল্পনা করতে পারিনা। এই প্রযুক্তি বিদ্যা নিয়ে অনেক ক্যারিয়ারের বিকল্প রয়েছে যেখানে আপনি আপনার ক্যারিয়ার তৈরি করতে পারেন।

নতুন ক্যারিয়ারের সম্বন্ধে আইডিয়া তৈরি করুন

আমরা প্রত্যেকেই সীমিত কিছু ক্যারিয়ারের মধ্যে আমাদের জীবনকে সীমাবদ্ধ করে রেখেছি। হয় আমাদের সরকারি চাকরি পেতে হবে অথবা Business করতে হবে এরকম চিন্তা ভাবনা বা ক্যারিয়ার আমাদের মাথায় ঘোরাফেরা করে। কিন্তু এমন অনেক বিকল্প ক্যারিয়ারের উদাহরণ রয়েছে যা হয়তো আপনি পছন্দ করতে পারেন এবং আপনি ওই বিষয়ে দক্ষ।

এই বিকল্প ক্যারিয়ার গুলি খোঁজার জন্য আপনি Internet র সহযোগিতা গ্রহণ করতে পারেন এখান থেকে আপনি নতুন নতুন সব ক্যারিয়ার সম্বন্ধে জানতে পারবেন, সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে কি কাজ করতে হবে, কি কোর্স করতে হবে, কি দক্ষতা লাগবে ,কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন সবকিছুই বিস্তারিত ভাবে দেওয়া থাকে। অর্থাৎ ক্যারিয়ার তৈরি করতে আপনি অনেক অপশন পেয়ে যাবেন।

উপসংহার

এই পর্যায়ে এসে একটিই কথা বলা যায় সিদ্ধান্ত আপনাকে নিতে হবে। বর্তমানে আপনার সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করছে আপনার আগামী জীবন কিভাবে কাটবে। এমন কোন ক্যারিয়ার বেছে নেবেন না যেখানে আপনার কোন Interest- ই নেই। তাই খুব সাবধানে সিদ্ধান্ত করুন। ক্যারিয়ার বেছে নেওয়ার পর আগামী 40 থেকে 50 বছর ওই সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে আপনাকে কাজ করতে হতে পারে। আর যদি আপনার পছন্দের কাজ না হয় তাহলে জীবনটা কে অভিশাপ বলে মনে হতে পারে। তাই আপনি যে ক্ষেত্রে দক্ষ যেটা আপনার পছন্দের সে ধরনের ক্যারিয়ারই আগে বাছুন।

Leave a Comment